শিরোনামঃ
পেকুয়ায় গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হল নিহত মানিকের মরদেহমহেশখালীতে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী জাম্বু নিহত, অস্ত্র উদ্ধারসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বার্থে রংপুরের প্রকৃত ঘটনার উদঘাটন করতে হবে–অধ্যাপক চন্দনদৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদকের মৃত্যুতে শোকরামুতে অপহৃত যুবক রুবেল দশ ঘন্টার পর উদ্বারভূমিদস্যুদের খুঁটির জোর কোথায়? কালারমারছড়া-শাপলাপুর সড়কে বালি লুট থামানো যাচ্ছেনা!ধম্মকায়া ফাউন্ডেশনের সাথে বৌদ্ধ উন্নয়ন সংস্থার মতবিনিময়সংবাদপত্রের অবাধ মত প্রকাশে শেখ হাসিনার সরকার কখনো হস্তক্ষেপ করেনিপেকুয়ায় জমির ফসল লুটপেকুয়ায় পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় পরীক্ষার্থীসহ আহত-৭পেকুয়ায় অগ্নিকান্ডে আরবশাহ বাজারে ৬ টি দোকান ভস্মীভূতকক্সবাজারে মোবাইল কোর্টের অভিযানে টমটম আটকসন্ত্রাসী কর্তৃক বন্ধ করা দোকানের তালা খুলেছে মালিকরাচকরিয়ায় ফার্মেসিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানকক্সবাজার শংকরমঠ ও মিশনের সভা অনুষ্ঠিত

মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

untitled-1-86356.jpg
উখিয়া প্রতিনিধি :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে। মিয়ানমারকে তাদের নাগরিকদের ফেরত নেয়ার আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী। ১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে পৌঁছেন তিনি। কক্সবাজারের উখিয়ায় শরণার্থী শিবির পরিদর্শন শেষে সমাবেশে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী জানান, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়াতে কাজ করছে সরকার। এ ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সংস্থা ও সম্প্রদায়ের প্রতি ভূমিকা রাখারও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা যতদিন নিজেদের দেশে ফিরতে না পারবে, ততদিন বাংলাদেশ তাদের পাশে থাকবে। ত্রাণ বিতরণের অজুহাতে কেউ যাতে নিজেদের আখের গোছাতে না পারে, সেদিকে লক্ষ্য রাখার নির্দেশও দেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, মানবিক দিক বিবেচনায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে।
আবেগাপ্লুত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের প্রতি মিয়ানমার সরকারের অত্যাচার ও নির্দয় আচরণের কঠোর সমালোচনা করেন। পরে রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনার সঙ্গে ছিলেন তার ছোট বোন শেখ রেহানা, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার কর্মকর্তা পেপ্পি সিদ্দিক ছাড়াও, সরকারের একাধিক মন্ত্রী।
এর আগে সকাল ১০টায় কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে মেরিন ড্রাইভ সড়কপথে উখিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রীর এ পরিদর্শনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্থানীয় প্রশাসন। নেয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ত্রাণ গ্রহণ করতে এরইমধ্যে সেখানে শরণার্থী রোহিঙ্গারা সমবেত হয়েছে।
গত ২৫ আগষ্ট থেকে মিয়ানমারে রাখাইন প্রদেশে সেনাবাহিনী দমন-নিপীড়ন শুরু করলে রোহিঙ্গা বাংলাদেশ প্রবেশ করে। যার সংখ্যা বর্তমানে তিন লাখের বেশি ।
PinIt
Top