শিরোনামঃ
পেকুয়ায় গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হল নিহত মানিকের মরদেহমহেশখালীতে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী জাম্বু নিহত, অস্ত্র উদ্ধারসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বার্থে রংপুরের প্রকৃত ঘটনার উদঘাটন করতে হবে–অধ্যাপক চন্দনদৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদকের মৃত্যুতে শোকরামুতে অপহৃত যুবক রুবেল দশ ঘন্টার পর উদ্বারভূমিদস্যুদের খুঁটির জোর কোথায়? কালারমারছড়া-শাপলাপুর সড়কে বালি লুট থামানো যাচ্ছেনা!ধম্মকায়া ফাউন্ডেশনের সাথে বৌদ্ধ উন্নয়ন সংস্থার মতবিনিময়সংবাদপত্রের অবাধ মত প্রকাশে শেখ হাসিনার সরকার কখনো হস্তক্ষেপ করেনিপেকুয়ায় জমির ফসল লুটপেকুয়ায় পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় পরীক্ষার্থীসহ আহত-৭পেকুয়ায় অগ্নিকান্ডে আরবশাহ বাজারে ৬ টি দোকান ভস্মীভূতকক্সবাজারে মোবাইল কোর্টের অভিযানে টমটম আটকসন্ত্রাসী কর্তৃক বন্ধ করা দোকানের তালা খুলেছে মালিকরাচকরিয়ায় ফার্মেসিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানকক্সবাজার শংকরমঠ ও মিশনের সভা অনুষ্ঠিত

টেকনাফে আরো ১০রোহিঙ্গার মরদেহ ও স্বর্ণালংকার উদ্ধার

C0XS-PICT-06.09.2017.jpg

ফাইল ছবি

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন :
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার ঘটনায় বাংলাদেশে পালিয়ে আসার সময় নাফ নদীতে ফের নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এতে ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গত মঙ্গলবার রাত ও বুধবার সকালে থেকে টেকনাফের শাহপরী দ্বীপ থেকে শিশু ৩ জন ২ জন নারী ও ৩জন পুরুষ এবং সাবারাং মর্গ পাড়া থেকে আরো ২জন নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এসময় তাদের কাজ থেকে সোনার গহনা ও মিয়ানমারের টাকা সহ বিভিন্ন মালামাল পাওয়া যায়।
নৌকা ডুবির খবর পেয়ে সাবরাং মর্গপাড়ায় ছুটে যায় নিখোঁজ দুই রোহিঙ্গা যুবককের মামা মিয়ানমার মংডু পেরাংপুর এলাকার মোঃ ওমর ফারুক।
ওমর ফারুক জানান, গত সোমবার রাতে মিয়ানমারের মংডু মংনি পাড়া ঘাটে বাংলাদেশ থেকে একটি নৌকা গিয়ে তাদেরকে আনতে যায়। এতে আমার দুই ভাগিনা মংডু হারি পাড়া এলাকার মকবুল আহমদের ছেলে মোঃ আয়াজ ও মোঃ খালেদ ও একই এলাকার নজু মিয়ার ছেলে নুর কালাম ওই নৌকাতে ছিল। তবে রাত পেরিয়ে সকালেও পর্যন্ত তাদের কোন খবর পাওয়া যায়নি।
টেকনাফ মডেল থানার ওসি মাইন উদ্দিন খান জানান, গত মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকালে নাফ নদী থেকে তিন শিশু, তিন পুরুষ ও ৪ নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃতদেহ কাজ থেকে টাকা ও সোনার গহনা পাওয়া গেছে সেগুলো আমাদের হেফাজতের রয়েছে। উদ্ধার মৃতদেহ গুলো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।
তিনি আরো জানান, সময় তাদের কাজ থেকে সোনার গহনা ও মিয়ানমারের টাকা পাওয়া গেছে, ৮টি হাতের চুরি, ২টি ক্লিপ,২টি সেন্ট, ১টি হাতের ব্যাচলাইট, ৬টি কানেরদুল, ৩টি আনটি, ১০টি লকেটফুল ও ১০হাজারে নোট ১৪টি, ৫হাজার নোট ১২টি, ১হাজারে ২টি, মোট সোনার পরিমান ৯ ভরি ১ আনা, টাকা পরিমান ২ লক্ষ ২ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

PinIt
Top