শিরোনামঃ
পেকুয়ায় গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হল নিহত মানিকের মরদেহমহেশখালীতে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী জাম্বু নিহত, অস্ত্র উদ্ধারসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির স্বার্থে রংপুরের প্রকৃত ঘটনার উদঘাটন করতে হবে–অধ্যাপক চন্দনদৈনিক পূর্বকোণ সম্পাদকের মৃত্যুতে শোকরামুতে অপহৃত যুবক রুবেল দশ ঘন্টার পর উদ্বারভূমিদস্যুদের খুঁটির জোর কোথায়? কালারমারছড়া-শাপলাপুর সড়কে বালি লুট থামানো যাচ্ছেনা!ধম্মকায়া ফাউন্ডেশনের সাথে বৌদ্ধ উন্নয়ন সংস্থার মতবিনিময়সংবাদপত্রের অবাধ মত প্রকাশে শেখ হাসিনার সরকার কখনো হস্তক্ষেপ করেনিপেকুয়ায় জমির ফসল লুটপেকুয়ায় পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় পরীক্ষার্থীসহ আহত-৭পেকুয়ায় অগ্নিকান্ডে আরবশাহ বাজারে ৬ টি দোকান ভস্মীভূতকক্সবাজারে মোবাইল কোর্টের অভিযানে টমটম আটকসন্ত্রাসী কর্তৃক বন্ধ করা দোকানের তালা খুলেছে মালিকরাচকরিয়ায় ফার্মেসিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানকক্সবাজার শংকরমঠ ও মিশনের সভা অনুষ্ঠিত

পেকুয়া শিলখালীর পাহাড়ে রোহিঙ্গা পরিবার

rohingya1125.jpg

ফাইল ছবি

পেকুয়া প্রতিনিধি :
মায়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকরা পেকুয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে। শিলখালীর কাচারীমোড়া পাহাড়ে বসবাস করছে মায়ানমারের পরিবার। লম্বামোড়া নামক স্থানে রোহিঙ্গা একটি পরিবার বসতি স্থাপন করেছে। তারা ২/৩ মাস আগে থেকে শিলখালীতে এসে স্বপরিবারে অবস্থান নিয়েছে। জায়গা ক্রয় করেছে স্থানীয় পাহাড় দখলদারদের কাছ থেকে। নন জুড়িশিয়াল ষ্ট্যাম্প মুলে প্রায় ৬ শতক পাহাড়ি জায়গা ক্রয় করে বার্মাইয়া এ পরিবারটি। তারা রোহিঙ্গা নাগরিক। তবে পরিচয় দিচ্ছেন টেকনাফের বাসিন্দা বলে। মনোয়ারা বেগম নামের এক মহিলা ওই জায়গায় বসতি স্থাপন করছেন। তার স্বামী ওমর ফারুক মালয়েশিয়ায় থাকেন। মনোয়ারা ও তার অপর বোন ডালিয়া কাচারীমোড়ার ষ্টেশনের পূর্ব পাশের্^ লম্বামোড়ায় এসে জায়গা ক্রয় করে ঘর নির্মাণ করে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন। দুইবোনের স্বামী মালয়েশিয়া প্রবাসী। তবে সাগরপথে দুইবোনের জামাই মালয়েশিয়ায় পাড়ি দেন। স্বামী মালয়েশিয়ায় থাকা অবস্থায় দুইবোন পেকুয়াতে জায়গা ক্রয় করেছেন। ডালিয়া কক্সবাজারের লিংকরোডে পৃথক জায়গা ক্রয় করেছেন বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা জানায়, কসাইপাড়ার জুবাইদা নামের এক মহিলা মায়ানমারের নাগরিকের সাথে বিবাহ হয়। জুবাইদার স্বামী রোহিঙ্গা নাগরিক মনোয়ারার ভাই। এ সুবাধে তারা পেকুয়াতে ঢুকে পড়ে। স্থানীয়রা আরো জানায়, বিএনপি ও জামায়াতের কিছু প্রভাবশালীদের সাথে রোহিঙ্গা ওই মহিলার সম্পর্ক রয়েছে। এদের ছত্রছায়ায় রোহিঙ্গা এ পরিবারটি কাচারীমোড়ায় বসবাস করছে। জয়নাল আবেদীন নামের স্থানীয় এক যুবক তাদের নেপথ্যে সহায়তা করছে। পেকুয়ার বিভিন্ন প্রান্তে রোহিঙ্গা ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বকশিয়াঘোনা, রাইবাপেরপাড়া, মিয়ারপাড়া, সদর ইউনিয়নের চৈড়ভাঙ্গা এলাকায় বেশ কিছু পরিবারে রোহিঙ্গারা আশ্রয় নিয়েছে বলে স্থানীয়রা গোপন সুত্রে নিশ্চিত করেছে।

PinIt
Top