শিরোনামঃ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্দা উঠলো কক্সবাজার শিল্প ও বাণিজ্য মেলারকুয়াশাস্নাত ভোরে শহীদদের স্মরণস্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢলবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাস্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাসরকারের স্বাস্থ্যনীতি বাস্তবায়নে সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন –ডা: শেখ শফিউল আজমচট্টগ্রাম প্রাথমিক দন্ত চিকিতসক কল্যাণ সমবায় সমিতির নির্বাচন সম্পন্নপশ্চিম টইটং নুরানী একাডেমীর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনমহেশখালী-বদরখালী বিজয় দিবস উপলক্ষে ফুলের দোকান সমূহে বিক্রির ধুমমহেশখালীতে অবৈধ করাতকলে চলছে গাছ চিরাই, বনবিভাগ নির্বিকারজাতীয় ছাত্র সমাজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃবৃন্দের সাথে পানিসম্পদ মন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাতকক্সবাজার শিল্প ও বানিজ্য মেলার উদ্বোধন আজজাতিকে মেধা শূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত তরুণ সমাজকক্সবাজারে বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রদীপ প্রজ্জলন

পেকুয়ায় গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হল নিহত মানিকের মরদেহ

0000001.jpg

স্টাফ রিপোর্টার, পেকুয়া:
পেকুয়ায় গ্রামের নিজ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে নিহত মানিকের মরদেহ। লাশ উদ্ধারের ২৫ দিন পর অবশেষে নিহত মানিকের লাশ নিয়ে আসা হয় গ্রামের বাড়িতে। লাশ উদ্ধার হওয়ার পর সুরত হাল রিপোর্ট শেষে কক্সবাজার সদর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরন করে। বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামে স্থানান্তরিত করা হয়। তারা লাশটি মাটি চাপা দেয়। লাশ উদ্ধারের তিন দিন পর লাশটি সনাক্ত হয়েছে। এ সময় উজানটিয়া ইউনিয়নের সুতাচুরা ঠান্ডারপাড়া এলাকার মোক্তার আহমদের স্ত্রী জিগারা বেগম থানায় উপস্থিত হন। এ সময় উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের পশ্চিমপাহাড়িয়াখালী জড়পাথর নামক বিল থেকে উদ্ধার হওয়া লাশটি তার ছেলে মানিকের বলে পুলিশকে নিশ্চিত করেছে। ২ দিন পর লাশের ডিএনএ টেস্ট ও আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম কর্তৃক মাটি চাপা দেওয়া লাশ কবর থেকে উত্তোলন পূর্বক পরিবারের নিকট হস্তান্তর করতে চকরিয়া সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আবেদন করে। নিহত মানিকের বড় ভাই হারুনুর রশিদ বাদী হয়ে এ আবেদন করেন। এমনকি তারা হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত আসামীদের মামলায় অন্তর্ভূক্ত করতে আদালতে সম্পুরক এজাহার দায়ের করে। আদালত বাদীর আনিত বিষয় গ্রহন করেছেন। এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষকে আইনী সহায়তা দিতে পুলিশকে আদেশ দিয়েছে। অবশেষে লাশ উদ্ধারের ২৫ দিন পর গতকাল রবিবার মানিকের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। ওই দিন বিকাল ৪ টায় লাশ গ্রামে পৌছায়। বিকেল ৫ টার দিকে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থান সোনালী বাজার জামে মসজিদ সংলগ্ন স্থানে দাফন করা হয়। এ ব্যাপারে নিহত মানিকের ভাই মামলার বাদী উপজেলা সৈনিক লীগের প্রচার সম্পাদক হারুনুর রশিদ জানায়, ঘাতকরা আমার নিষ্পাপ ভাই মানিককে নির্মম ও নিষ্টুরভাবে খুন করেছে। তারা আমার এক ভাইকে মিথ্যা মামলায় দু’বছর ধরে কারাগারে পৌছায়। এরপর আমার ভাই মানিককে খুন করেছে। আমার পরিবার খুনীদের কাছে অনিরাপদ। খুনীদের নাম উলে¬খ করে মামলা করেছি। তারা ঘোরাফেরা করছে। পুলিশ আসামীদের না ধরছে। আমরা আইনী সহায়তা পাচ্ছি না। খুনীরা অধরা রয়ে গেছে। তারা আরো বেপরোয়া হচ্ছে।

 

PinIt
Top