শিরোনামঃ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্দা উঠলো কক্সবাজার শিল্প ও বাণিজ্য মেলারকুয়াশাস্নাত ভোরে শহীদদের স্মরণস্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢলবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাস্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাসরকারের স্বাস্থ্যনীতি বাস্তবায়নে সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন –ডা: শেখ শফিউল আজমচট্টগ্রাম প্রাথমিক দন্ত চিকিতসক কল্যাণ সমবায় সমিতির নির্বাচন সম্পন্নপশ্চিম টইটং নুরানী একাডেমীর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনমহেশখালী-বদরখালী বিজয় দিবস উপলক্ষে ফুলের দোকান সমূহে বিক্রির ধুমমহেশখালীতে অবৈধ করাতকলে চলছে গাছ চিরাই, বনবিভাগ নির্বিকারজাতীয় ছাত্র সমাজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃবৃন্দের সাথে পানিসম্পদ মন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাতকক্সবাজার শিল্প ও বানিজ্য মেলার উদ্বোধন আজজাতিকে মেধা শূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত তরুণ সমাজকক্সবাজারে বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রদীপ প্রজ্জলন

কাপনের কাপড় পড়ে রাস্তায় ব্যতিক্রম প্রতিবাদ!

matar-picer-23.11.17.jpg

মাতারবাড়ী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমি থেকে উচ্ছেদ ৪৫ পরিবারের পূর্নবাসন ও কর্মস্থানের দাবিতে ফুঁসে উঠেছে সাইরারডেইল

এ.এম হোবাইব সজীব :
কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ীতে অগ্রাধীকার ভিত্তিতে দেশের বৃহৎ কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরীতে উচ্ছেদকৃত ৪৫ পরিবারের পূর্ণবাসন ও কর্মস্থানসহ উক্ত প্রকল্পের সাথে লাগায়ো সাইরারডেইল এলাকার বাসিন্দাদের নিয়োগ দানের দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর সকাল ৬ টার সময় উপজেলার মাতারবাড়ী সাইরারডেইল বাজারের প্রধান সড়কে অধিক গ্রহণকৃত জমি হইতে উচ্ছেদ হওয়ায় ৪৫ পরিবারের শত শত নারী পুরুষ ফুঁসে উঠে পূর্ণবাসন ও কর্মস্থানের দাবীতে উচ্ছেদকৃত ৪৫ পরিবার ও সাইরারডেইল এলাকাবাসী কাপনের সাদা কাপড় পড়ে রাস্তায় শুয়ে পড়ে ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিবাদ করেছেন। এতে সড়কে স্বাভাবিক যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে প্রকল্প এলাকা থেকে জাইকা ও কোল পাওয়ার জেনারেশন থেকে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এসে তাদের দাবী পূরর্ণ করবে বলে আশ্বস্থ করলে তারা রাস্তা থেকে সরে যায়। তবে সাইরারডেইল এলাকার কিছু লোক কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে চাকরি পেয়েছে বলে এমন কথাও শোনা যাচ্ছে।
ক্ষতিগ্রস্ত মোঃ আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সিঙ্গাপুর বানানোর স্বপ্ন দিয়ে মাতারবাড়ীবাসীর উচ্ছেদ ৪৫ পরিবার এবং সাইরার ডেইল বাসী কি করবে? পেটে থাকলে পিঠে সয়। পেটে ভাত না দিয়ে সিঙ্গাপুর দিয়ে পেট ভরবে না। তিনি আরোও বলেন, ৪৫ পরিবারের সদস্য ও স্থানিয়দের মধ্যে যারা বেকার হয়ে পড়েছে প্রকল্পের কাজে অনন্ত শ্রমিক হিসেবে নিয়োগ দানের দাবীতে করছি। আমরা ভাড়া বাসা পরিবার পরিজন নিয়ে জীবন অতিবাহিত করতেছি। চাকরি না পেলে বাসা ভাড়া কোথায় থেকে দেব। তাই কাপনের কাপড় পড়ে রাস্তায় নেমে এসেছি।
মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়েজুল করিম বলেন, আমাদের শেষ সম্বাল টুকু দিয়ে এদেশের ষোল কোটি মানুষের উন্নয়ন হচ্ছে অথচ এই এলাকার মানুষ গুলো বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে কাজের সন্ধানে ঘুরে বেড়াচ্ছে, ভিক্ষা করছে অনেকে মানুষের ধারে ধারে, অর্ধাহারে রয়েছে ৪৫ পরিবারের কয়েক’শ নারী-পুরুষ। আমরা উন্নয়ন চাই না, দুই মুঠো পেট ভরে ভাত চায়।
এই এলাকার গরীব খেতে খাওয়া মানুষের পেটে লাথি মেরে প্রকল্প এলাকার বাইরে মাতারবাড়ীর উত্তর প্রান্ত ও পাশ্ববর্তী চকরিয়ার বদরখালীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে শ্রমিক এনে একটি প্রভাবশালী দালাল সিন্ডিকেট মোটা অংকের টাকা নিয়ে শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে কাজ করাবে তা হয় না। এটা আমরা কখনো মেনে নেব না। এখন সাইরারডেইল ৪৫ পরিবারসহ অত্র এলাকাবাসীর মানুষের মনের ভিতর ক্ষোভের দানা বেঁধে মাত্র কাপনের কাপড় পড়ে রাস্তায় নেমে এসেছে আগামীতে এটা যে কোন মুর্হুতে বিস্ফোরিত হয়ে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকায় গিয়ে বাহিরের শ্রমিকদের সাথে সংর্ঘষের রূপ নিতে পারে।
তার দায় ভার নিতে হবে এই এলাকার গরীবের পেটে যারা লাথি মেরে দালালী করছে তাদেরকে। মোঃ শাকিল বলেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন ও উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোঃ আবুল কালাম মহোদয় আমাদের কে আশ্বস্থ করেছিলেন পূর্ণবাসনও কর্মস্থাননের ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু আশার ফুলঝুঁড়ি শুনালেও তা এখন বাস্তবায়ন হয়নি বলে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

PinIt
Top