শিরোনামঃ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্দা উঠলো কক্সবাজার শিল্প ও বাণিজ্য মেলারকুয়াশাস্নাত ভোরে শহীদদের স্মরণস্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢলবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাস্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাসরকারের স্বাস্থ্যনীতি বাস্তবায়নে সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন –ডা: শেখ শফিউল আজমচট্টগ্রাম প্রাথমিক দন্ত চিকিতসক কল্যাণ সমবায় সমিতির নির্বাচন সম্পন্নপশ্চিম টইটং নুরানী একাডেমীর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনমহেশখালী-বদরখালী বিজয় দিবস উপলক্ষে ফুলের দোকান সমূহে বিক্রির ধুমমহেশখালীতে অবৈধ করাতকলে চলছে গাছ চিরাই, বনবিভাগ নির্বিকারজাতীয় ছাত্র সমাজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃবৃন্দের সাথে পানিসম্পদ মন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাতকক্সবাজার শিল্প ও বানিজ্য মেলার উদ্বোধন আজজাতিকে মেধা শূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত তরুণ সমাজকক্সবাজারে বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রদীপ প্রজ্জলন

পেকুয়ায় ফক্সিতে জমি রেজিষ্ট্রি, ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

download-1-300x150.png

স্টাফ রিপোর্টার, পেকুয়া;
পেকুয়ায় ফক্সিতে জমির রেজিষ্ট্রি সম্পাদন করেছে একটি চক্র। জমি অন্যজনের ফক্সিতে
কবলা দিয়েছেন দুর্ধান্ত প্রতারক চক্র। এতে করে ক্ষতিগ্রস্ত পক্ষ জাল জালিয়তিতে সম্পৃক্ত
থাকায় ৮ জনের বিরুদ্ধে চকরিয়া সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে নালিশি মামলা রুজু করে। মামলায় ৮জনকে আসামী করা হয়েছে। মামলার আসামীরা হলেন বারবাকিয়া কুতুবপাড়ার মৃত হামিদুর রহমানের ছেলে মোস্তাক আহমদ প্রকাশ লালু, শেখেরকিল্লাঘোনা এলাকার নাজেম উদ্দিনের ছেলে জয়নাল আবদীন, চকরিয়া পৌরসভার জনতা মার্কেট এলাকার নাছির উদ্দিনের ছেলে রাজিব প্রকাশ মোহাম্মদ রাহাত ও চট্রগ্রাম
জেলার রাউজান গুজারা কাগতিয়া এলাকার মৃত জালাল আহমদের ছেলে বাবুল। আদালত বিষয়টি তদন্তের জন্য ন্যস্তভার অর্পন করেন পেকুয়া থানার ওসিকে। চলতি মাসের ২ নভেম্বর আদালতে নালিশি অভিযোগ দায়ের করেছেন চট্রগ্রামের রাউজানের বিনাজুরি এলাকার মৃত ছৈয়দ আকবরের ছেলে তানভীর আকবর চৌধুরী (৪২)। যার নং ১৩৪২/১৭। মামলার সুত্রে জানা যায়,মগনামা চেরাংঘোনা মৌজায় বাদীর পৈত্রিক সম্পত্তি আছে। তারা চট্রগ্রামের রাউজান এলাকার বাসিন্দা। বৃটিশ সময়ে এ জমি তারা ভোগদখলদার। চেরাংঘোনার বিপুল সম্পত্তির মালিক রাউজান এলাকার বাসিন্দারা। সম্প্রতি আসামীদের লোলুভ দৃষ্টি পড়ে জমির প্রতি।তারা গত ২৪-০৮-১৭ ইং তারিখে পৃথক ৩ টি দলিল সম্পাদন করে। জমি রেজিষ্ট্রি সম্পাদনে আসামীরা পরষ্পর যোগসাজসে তিনটি পৃথক দলিলে ফক্সি করেছেন। ১৪৪৫, ১৪৪৬ ও ১৪৪৭ পৃথক দলিলে মোট জমির পরিমান ৫.৮৪ একর। তারা জমি কবলা সম্পাদনে দুর্ধান্ত প্রতারনা ও জাল জালিয়তির আশ্রয় নেন। ছবি, আইডি কার্ড জন্ম নিবন্ধন, সনদসহ ওয়ারিশ সনদ সব কিছু জালিয়তি করেছেন। বিষয়টি জানাজানি হলে জায়গার প্রকৃত মালিক জমির রেজিষ্ট্রির সহিমুহুরি অবিকল নকল কপি সংগ্রহ করেন। এতে করে কবলাদাতাদের ফক্সি তথ্য ধরা পড়ে। এ দিকে ফক্সি কবলায় বিপুল পরিমান সম্পত্তি বেহাত নিয়ে মুল মালিকের সাথে জালিয়ত চক্রের বিরোধ দেখা দিয়েছে। জমি দখলে নিতে ফক্সি কবলা গ্রহিতাপক্ষ ভাড়াটে লোকজন জড়ো করছে। জমির আধিপত্য নিতে চেরাংঘোনা এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। বাদী ছৈয়দ আকবর জানায়, এমন প্রতারনায় মানুষ শিউরে উঠবে। তারা দুর্ধান্ত প্রতারক চক্র। আমি জালিয়াতির বিরুদ্ধে আদালতের আশ্রয় নিয়েছি।

PinIt
Top