শিরোনামঃ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে পর্দা উঠলো কক্সবাজার শিল্প ও বাণিজ্য মেলারকুয়াশাস্নাত ভোরে শহীদদের স্মরণস্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢলবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাস্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাসরকারের স্বাস্থ্যনীতি বাস্তবায়নে সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন –ডা: শেখ শফিউল আজমচট্টগ্রাম প্রাথমিক দন্ত চিকিতসক কল্যাণ সমবায় সমিতির নির্বাচন সম্পন্নপশ্চিম টইটং নুরানী একাডেমীর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনমহেশখালী-বদরখালী বিজয় দিবস উপলক্ষে ফুলের দোকান সমূহে বিক্রির ধুমমহেশখালীতে অবৈধ করাতকলে চলছে গাছ চিরাই, বনবিভাগ নির্বিকারজাতীয় ছাত্র সমাজ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃবৃন্দের সাথে পানিসম্পদ মন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাতকক্সবাজার শিল্প ও বানিজ্য মেলার উদ্বোধন আজজাতিকে মেধা শূন্য করার জন্য বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করেছিলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত তরুণ সমাজকক্সবাজারে বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রদীপ প্রজ্জলন

মহেশখালীতে আগুনে ভম্মিভূত ৫বসত ঘর, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

index.jpg

এ.এম হোবাইব সজীব :
মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের মাইজপাড়া গ্রামে বৈদ্যুতিক শর্ট সাকিট থেকে সুত্র পাত হয়ে ৫টি বসত ঘর সম্পূর্ন পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ঘটানাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টার সময় উপজেলার ইউনুছখালী – মাইজপাড়া গ্রামে। খবর পেয়ে মহেশখালী থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম আগুন নিয়ন্ত্রণ আনার জন্য গেলে তথক্ষণে উক্ত বসতঘর সম্পূর্ন পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পুড়ে যাওয়ার বাড়ির মালিকরা হলেন, ইউনিয়নের মাইজপাড়া গ্রামের আবুল কালাম, আবুল হাশেম, আবুতাহের, নুর আহমদও মৃত আবুল হাশেমের ছেলে মাসুদ।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মহিলারা জানান, হঠাৎ সকালে বাড়ির সকল পুরুষ সদস্যরা যার যার কর্মস্থলে চলে গেলে তখন হঠাৎ তাদের ঘরে আগুনের লেলিহান শিখা দেখে হাউ মাউ করে চিল্লাচিল্লী করলে এলাকাবাসী ছুটে এসে আগুণ নিন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেও টিনের ৫টি বাড়ি রক্ষা করতে পারেনি। এতে বাড়ির স্বর্ণ অলংকার, নগদ টাকাসহ মূল্যবান জিনিস পত্র পুড়ে গেছে। এতে প্রাথমিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৩০ লাখ টাকা বলে ধারণা করেছে এলাকাবাসী। বৈদ্যুতিক শট সাকির্ট থেকে আগুণের সূত্র পাত ঘটলে হাউ মাউ চিৎকার করলে প্রতিবেশিরা আগুণ নিভানোর জন্য চেষ্টা করলে আগুনের লেলিহান বেড়ে যাওয়ায় আগুণ নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভাব হয়নি।
মহেশখালী উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মোঃ আবুল কালাম দৈনিক আমাদের কক্সবাজারকে বলেন,কালারমারছড়া মাইজপাড়া গ্রামে ৫টি বসত ঘর পুড়ে গেছে বলে আমি শুনেছি তবে স্থানিয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন আবেদন করলে সরকারের তরফ থেকে সহযোগিতা করা হবে বলে জানান।

PinIt
Top